বিনোদনের খবর

বিনোদনের খবর আমার কুষ্টিয়া হতে প্রকাশিত

ওবায়দুল কাদেরের লেখা উপন্যাস নিয়ে চলচ্চিত্র ‘গাঙচিল’ এর মহরত অনুষ্ঠিত

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের লেখা উপন্যাস নিয়ে চলচ্চিত্র নির্মাণ করা হচ্ছে। উপন্যাসটির নাম ‘গাঙচিল’। উপন্যাসের সঙ্গে মিল রেখে চূড়ান্ত হয়েছে ছবির নামও।

আজ বুধবার রাজধানীর ঢাকা ক্লাবে মন্ত্রীর রচিত উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিতব্য পূর্ণদৈর্ঘ্য বাংলা ছায়াছবি ‘গাঙচিল’ এর মহরত অনুষ্ঠান হয়।

‘গাঙচিল’ চলচ্চিত্রের মহরতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংস্কৃতি মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর এবং তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম।

‘গাঙচিল’ ছবিটি পরিচালনা করবেন নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামুল। এখানে জুটি হিসেবে দেখা যাবে ফেরদৌস-পূর্ণিমাকে। এ ছবিতে পূর্ণিমা ছাড়াও অভিনয় করবেন কলকাতার জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত।

পরিচালক নেয়ামুল বলেন, ছবির চরিত্রের প্রয়োজনেই ঋতুপর্ণাকে নেয়া হয়েছে। ছবির গল্পটি অনেক ভালো লেগেছে তার, সে জন্যই তিনি রাজি হয়েছেন। আমরা আনন্দিত আমাদের ছবিতে ঋতুপর্ণার মতো একজন বড়মাপের অভিনেত্রীকে পেয়ে।

এ ছবিতে কাজ করার ব্যাপারটি নিশ্চিত করে ঋতুপর্ণা বলেন, আনন্দের সঙ্গেই জানাচ্ছি ‘গাঙচিল’ ছবিতে কাজ করতে যাচ্ছি আমি। এখনও আমার চরিত্রটি কেমন হবে সেটি পুরোপুরি জানি না। আমি আজই এসেছি। কয়েক দিন থাকব। গল্পটি আমি শুনেছি। চমৎকার ও সময়োপযোগী।

ওবায়দুল কাদেরের উপন্যাস ‘গাঙচিল’ থেকে চিত্রনাট্য লিখছেন বাংলাদেশের মারুফ রেহমান ও ভারতের প্রিয় চট্টোপাধ্যায়। শিগগিরই ছবিটির শুটিং শুরু হবে বলে জানান পরিচালক নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামুল

আসিফ আকবরের গানে মডেল নওমী খান ও অভি

মিউজিক ভিডিও’র কাজে ব্যস্ত সময় পার করছেন কন্ঠশিল্পী আসিফ আকবর। সপ্তাহ ঘুরতেই এবার ‘তোমাকে ভুলে যায়’ শিরোনামে মিউজিক ভিডিও নিয়ে হাজির হচ্ছেন ভক্তদের সামনে। গানটির শুটিং শুরু হয়েছে গতকাল শুক্রবার (১৪ সেপ্টেম্বর)। এতে জুটি বেঁধে কাজ করেছেন মডেল অভিনেত্রী নওমী খান , অভি ও নিশো। সম্পূর্ণ নতুন ও আধুনিক গল্প নিয়ে নির্মিত মিউজিক ভিডিওটির শুটিং শেষ করতে সময় লাগবে আরো দু’দিন। এই প্রথম অাসিফ অাকবারের গানে মডেল হিসাবে কাজ করলেন নওমি খান।

শাকিব অন্য দেশপ্রেমী, তার সাথে আমি কোন কাজ করবো না: নিপুণ

ছবির প্রস্তাব এলেও করবো না। কারণ সে  অন্য দেশপ্রেমী। আমি অন্য দেশ থেকে বাংলাদেশে চলে এসেছি। আমি আমার দেশের টাকা অন্য দেশে দিব না। ওর সাথে ছবি করতে গেলে দেখা যাবে পরিচালক-প্রযোজক অন্য দেশ থেকে এসেছে।

সম্প্রতি বেসরকারি স্যাটেলাইট টেলিভিশন আরটিভিতে প্রচারিত ‘এবং পূর্ণিমা’  অনুষ্ঠানে এসব কথা বললেন চিত্রনায়িকা নায়িকা নিপুণ। অনুষ্ঠানের উপস্থাপক পূর্ণিমা তাকে প্রশ্ন করেন, সুপারস্টার  শাকিব খানের সঙ্গে তুমি অনেক ছবি করেছো। এখন যদি তার সঙ্গে কাজের প্রস্তাব আসে করবে?’ উত্তরে নিপুণ কথাগুলো বলেন।

২০০৬ সালে ‘পিতার আসন’ ছবির মাধ্যমে বড় পর্দায় অভিষেক হয় নিপুণের। ঢালিউড অভিনেতা শাকিব খানের সঙ্গে বেশ কয়েকটি ছবিতে জুটি হয়ে অভিনয়ও করেছেন এ অভিনেত্রী।

জীবনের সবচেয়ে ভুল সিদ্ধান্ত কী জানতে চাইলে নিপুণ বলেন, ‘২০০১ সালে আমেরিকায় যাওয়া।’ তবে সেটি কেন ভুল সিদ্ধান্ত ছিল তা জানাতে চাননি নিপুণ।

এছাড়াও নিপুণকে জিজ্ঞেস করা হয় প্রেম করছেন কী না? উত্তরে নিপুন জানান তার স্পেশাল কেউ আছেন। তবে তার নাম বলতে চাননি। উপস্থাপক বার বার প্রশ্ন করেও স্পেশাল কেউ একজনের নাম নিপুণের মুখ থেকে বের করতে ব্যর্থ হন।

আঁতকে উঠবেন প্রিয়াংকার পোশাকের দাম শুনলে!

নিউইয়র্ক ফ্যাশন উইক-২০১৯ শুরু হয়েছে গত বুধবার। পরদিন শো-এর ডেইলি ফ্রন্ট রো ফ্যাশন মিডিয়া অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে ডিয়ন লি ব্ল্যাক ক্রিয়েশনের পোশাকে হাজির হয়েছিলেন প্রিয়াংকা চোপড়া। স্লিভলেস টপ ও গাউন টাইপ কালো স্কার্টে এদিন সকলের নজর কাড়েন মার্কিন পপ তারকা নিক জোনাসের সঙ্গে বাগদান সেরে গাঁটছড়া বাঁধার অপেক্ষায় থাকা এই বলিউড অভিনেত্রী।

জি নিউজের খবর, এই শো-এ প্রিয়াংকার ওই পোশাকের দাম শুনলে যেকোনো সাধারণ মধ্যবিত্ত ব্যক্তিই চমকে উঠবেন। জানা যাচ্ছে, এই পোশাকের দাম ১ লক্ষ ২০ হাজার ২৫০ টাকা। যদিও প্রিয়াংকার কাছে এই টাকাটা কিছুই নয়, তবে এই দাম শুনলে যেকোনোও মধ্যবিত্তের চোখ কপালে উঠাই স্বাভাবিক।

এদিন, নিউইয়র্ক ফ্যাশন উইক’স ডেইলি ফ্রন্ট রো ফ্যাশান মিডিয়া অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে হলিউডের বন্ধু বান্ধবদের সঙ্গে প্রথম সারিতে বসতে দেখা গেল প্রিয়াংকাকে।

অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে আরও একটি দিন হলুদ রঙের টপ ও মাল্টি প্রিন্টেট প্যাচওয়াক স্কার্ট পরে হাজির হয়েছিলেন প্রিয়াংকা। জানা যাচ্ছে, ভেরোনিকা বেয়ার্ড স্কার্ট ৩৯ হাজার ৫০০ টাকা।

বিক্রি হচ্ছে উকুন ! প্রতিটি উকুনের মূল্য ৩শ' টাকা

দুবাইতে বিক্রি হচ্ছে উকুন- মাথার উকুন মারার জন্য যারা এতদিন পয়সা খরচ করেছেন তাদের জন্য সংবাদটা আফসোসের। কারণ দুবাইতে ধুমছে বিক্রি হচ্ছে উকুন। তাও নামমাত্র মূল্যে নয়। এক উকুন ১৪ দেরহাম। বাংলাদেশি টাকায় যার মূল্য ৩০০ টাকার উপরে।

সম্প্রতি একটি গবেষণায় দেখা গেছে, মাথার উকুন চুল ও শরীর স্বাস্থ্যের জন্য বেশ উপকারী। ডাক্তাররা জানিয়েছেন, এতে চুল পড়ার সম্ভাবনা থাকে কম।

চুল মজবুত থাকে এবং শরীর স্বাস্থ্যবান রাখে। এ খবরের ভিত্তিতেই দুবাইতে উকুনের কদর বেড়েছে। নারীরাও তাদের মাথায় উকুনের যত্ন নিচ্ছেন।

খবরে বলা হয়েছে, উকুনের চাহিদা বাড়ায় দুবাইয়ের সেলুনগুলো উকুন বিক্রির শুরু করেছেন। যাদের মাথায় বেশি উকুন সেগুলো কিনে দিব্যি বিক্রি করছেন অন্য নারীদের কাছে।

তবে উকুন বিক্রির এই খবর চাউর হওয়ার পর ক্ষেপেছে দুবাইয়ের হেলথ কন্ট্রোল সেকশন। কর্তকর্তারা বলেছেন, উকুন বিক্রির সিদ্ধান্ত অন্যায়। যাকে এ কাজে পাওয়া যাবে জরিমানাও করা হবে বলে জানিয়ে দিয়েছেন তারা।

সালমান শাহের চলে যাওয়ার ২২ বছর !

সালমান শাহের মৃত্যুবার্ষিকী আজ। ১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর রহস্যজনকভাবে মারা যান এই ক্ষণজন্মা প্রতিভা।  ২২ বছর হলো উন্মোচিত হয়নি মৃত্যুরহস্য। নাসল নাম নাম শাহরিয়ার চৌধুরী ইমন। চলচ্চিত্রে এসে নাম নেন ‘সালমান শাহ’। ১৯৭০ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর সিলেটের জকিগঞ্জ উপজেলায় জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা কমর উদ্দিন চৌধুরী ও মা নীলা চৌধুরী। তিনি পরিবারের বড় ছেলে।

সালমান শাহ ১৯৯২ সালের ১২ আগস্ট বিয়ে করেন। তার স্ত্রীর নাম সামিরা। সালমানের মৃত্যুতে সমগ্র চলচ্চিত্রশিল্পে শোক নেমে আসে। শোক সইতে না পেরে অনেক ভক্ত আত্মাহুতির পথও বেছে নিয়েছিলেন। অনেক উত্থান-পতনের মধ্যদিয়ে গেছে বাংলা চলচ্চিত্রশিল্প। এর সঙ্গে অনেকে সালমানের মৃত্যুকে মিলিয়ে দেখেন। তাই আজও নতুন কোনো শিল্পীর কথা উঠলেই স্বাভাবিকভাবেই উদাহরণ হিসেবে চলে আসে সালমান শাহ।

তার সঙ্গে সবচেয়ে বেশি ছবি করা নায়িকা শাবনূর আক্ষেপ করে বলেছিলেন, ‘সালমান বেঁচে থাকলে আমরা দুজনে উত্তম-সুচিত্রার মতো হতে পারতাম।’ আজও নতুন কোনো পরিচালক সালমান শাহ অভিনীত ছবির রিমেক করার উদ্যোগ নিলে প্রথমেই প্রশ্ন ওঠে, অভিনয় করবেন কে? উত্তর পাওয়ার পরের প্রশ্ন, তিনি কি পারবেন সালমানের মতো করতে?

মাত্র চার বছরের চলচ্চিত্র জীবনে সালমান শাহ খুব বেশি ছবিতে অভিনয় না করলেও যতটা করেছেন, মন দিয়ে করেছেন। দর্শকদের জন্য করেছেন। তাই তো দর্শকরা আজও তাকে ভুলতে পারেননি।

আজও সালমান যেখানে চিরনিদ্রায় শায়িত সেখানে তার ভক্তরা নীরবে চোখের জল ফেলেন। আজও টেলিভিশনের পর্দায় তার অভিনীত ছবি প্রদর্শন হলে হুমড়ি খেয়ে পড়েন দর্শকরা। আজও নতুন ছেলেরা সিনেমায় আসার স্বপ্ন দেখে সালমানের জন্য। এখানেই সালমান অনন্য, অপ্রতিদ্বন্দ্বী ও চিরস্মরণীয়।

মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি স্মরণ করবে তাকে। শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান জানান, ‘সালমান শাহের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে ৬ সেপ্টেম্বর এফিডিসিতে কোরআন খতম করানো হবে সকালে। দুপুরে দুস্থ মানুষদের মধ্যে খাবার বিতরণ করা হবে ও বিকেলে তার আত্মার মাগফিরাত কামনা করে মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হবে।’

শিল্পী সমিতির আয়োজন ছাড়াও টেলিভিশন চ্যানেলগুলোও নানা অনুষ্ঠান প্রচার করবে সালমান শাহের মৃত্যু দিবসে।

হোটেলে অভিনেত্রীর অস্বভাবিক মৃত্যু

অস্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে কলকাতার বাংলা সিনেমার অভিনেত্রী পায়েল চক্রবর্তীর। পশ্চিমবঙ্গের শিলিগুড়ির একটি হোটেলের ঘর থেকে উদ্ধার করা হয়েছে তাঁর ঝুলন্ত লাশ। পরেই হোটেল রেজিস্ট্রারে দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতেই পায়েলের যাদবপুরের বাসায় যোগাযোগ করা হয়। ঘটনার তদন্তে নেমেছে পুলিশ। তবে প্রাথমিক ভাবে এটি আত্মহত্যার ঘটনা বলেই মনে করছে পুলিশ।

জানা গেছে, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় কলকাতা থেকে শিলিগুড়ির চার্চ রোডের হোটেলের ২১৩ রুমে উঠেছিলেন পায়েল। হোটেলে প্রবেশের পরই হোটেল কর্তৃপক্ষকে জানান রাতের খাবারের প্রয়োজন নেই। পরদিন তিনি গ্যংটক ঘুরতে যাবেন। এবং বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া তাঁকে যেন ডাকা না হয়। কিন্তু বুধবার সকালে হোটেলের রুম সার্ভিসের কর্মীরা পায়েলের ঘরের দরজায় শব্দ করে তার কোন সাড়া পাননি। এরপর হোটেলের সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখা যায় সন্ধ্যার পর হোটেল থেকে একবারও বাইরে বের হননি। এরপরই বেলা ১২টার দিকে পুলিশে খবর দেওয়া হয়। পুলিশ এসে ঘরের দরজা ভেঙে পায়েলের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে। এরপর লাশটিকে ময়নাতদন্তের জন্য শিলিগুড়ি জেলা হাসপাতালে পাঠানো হয়।

এই মুহুর্তে টালিগঞ্জের ব্যস্ততম অভিনেত্রীদের একজন পায়েল। বেশ কয়েকটি সিনেমা এবং টিভি সিরিয়ালে কাজ করেছেন তিনি। সম্প্রতি ‘কেলো’ ও ‘চতুর্থ রিপু’ নামে দুইটি সিনেমায় অভিনয় করছিলেন তিনি। আগামী ১৪ সেপ্টেম্বর ‘কেলো’ সিনেমাটি মুক্তি পাওয়ার কথা। পায়েলের মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে টালিগঞ্জ স্টুডিওপাড়ায়। পায়েলের মৃতুত্যে শোকাহত তাঁর সহকর্মীরাও।

সালমান শাহ অভিনীত ছবির তালিকা ও মুক্তির তারিখ

সালমান শাহের মৃত্যুবার্ষিকী আজ। ১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর রহস্যজনকভাবে মারা যান এই ক্ষণজন্মা প্রতিভা।  ২২ বছর হলো উন্মোচিত হয়নি মৃত্যুরহস্য। নাম শাহরিয়ার চৌধুরী ইমন। চলচ্চিত্রে এসে নাম নেন ‘সালমান শাহ’। ১৯৭০ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর সিলেটের জকিগঞ্জ উপজেলায় জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা কমর উদ্দিন চৌধুরী ও মা নীলা চৌধুরী। তিনি পরিবারের বড় ছেলে।

আসুন জেনে নেই সালমান শাহ অভিনীত ছবির তালিকা ও মুক্তির তারিখ:

● কেয়ামত থেকে কেয়ামত – ১৯৯৩ সালের ২৫ মার্চ
● তুমি আমার – ১৯৯৪ সালের ২২ মে
● অন্তরে অন্তরে – ১৯৯৪ সালের ১০ জুন
● সুজন সখী – ১৯৯৪ সালের ১২ আগস্ট
● বিক্ষোভ – ১৯৯৪ সালের ৯ সেপ্টেম্বর
● স্নেহ – ১৯৯৪ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর
● প্রেমযুদ্ধ – ১৯৯৫ সালের ২৩ ডিসেম্বর
● কন্যাদান – ১৯৯৫ সালের ৩ মার্চ
● দেনমোহর – ১৯৯৫ সালের ৩ মার্চ
● স্বপ্নের ঠিকানা – ১৯৯৫ সালের ১১ মে
● আঞ্জুমান – ১৯৯৫ সালের ১৮ আগস্ট
● মহামিলন – ১৯৯৫ সালের ২২ সেপ্টেম্বর
● আশা ভালোবাসা – ১৯৯৫ সালের ১ ডিসেম্বর
● বিচার হবে- ১৯৯৬ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি
● এই ঘর এই সংসার – ১৯৯৬ সালের ৫ এপ্রিল
● প্রিয়জন – ১৯৯৬ সালের ১৪ জুন
● তোমাকে চাই – ১৯৯৬ সালের ২১ জুন
● স্বপ্নের পৃথিবী – ১৯৯৬ সালের ১২ জুলাই
● সত্যের মৃত্যু নেই – ১৯৯৬ সালের ১৩ ই সেপ্টেম্বর
● জীবন সংসার – ১৯৯৬ সালের ১৮ অক্টোবর
● মায়ের অধিকার – ১৯৯৬ সালের ৬ ডিসেম্বর
● চাওয়া থেকে পাওয়া – ১৯৯৬ সালের ২০ ডিসেম্বর
● প্রেম পিয়াসী – ১৯৯৭ সালের ১৮ এপ্রিল
● স্বপ্নের নায়ক – ১৯৯৭ সালের ৪ জুলাই
● শুধু তুমি – ১৯৯৭ সালের ১৮ জুলাই
● আনন্দ অশ্রু – ১৯৯৭ সালের ১ আগস্ট
● বুকের ভেতর আগুন – ১৯৯৭ সালের ৫ সেপ্টেম্বর

কুমার শানুর বিরুদ্ধে অভিযোগ

 গেল রবিবার গভীর রাত পর্যন্ত বিহারের মুজাফ্ফরপুরে মাইক বাজিয়ে অনুষ্ঠান করেন কুমার শানু। রাত ১০ টার পরও জোরে জোরে মাইক বাজিয়ে চলে অনুষ্ঠান। আর এরপরেই ঐ অনুষ্ঠানের উদ্যোক্তাদের বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করা হয়।

মুজাফফরপুরের পুলিশ আধিকারিক সংবাদমাধ্যম ANI -কে জানান, ‘রাত ১০টার পরও লাউডস্পিকার (সাউন্ডবক্স) বাজিয়ে অনুষ্ঠান চলছিল। আমাদের কাছে অভিযোগ দায়ের হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করা হচ্ছে’।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম ইন্ডিয়া টুডে সূত্রে জানা যায়, শুধু অনুষ্ঠানের উদ্যোক্তাদের বিরুদ্ধেই নয়, ৬০ বছরের গায়ক কুমার শানুর বিরুদ্ধেও অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। রবিবার রাতে মুজাফ্ফরপুরের একটি স্কুলের মধ্যেই চলছিল এই অনুষ্ঠান। সে অনুষ্ঠানে এত জোরে মাইক বাজানো হচ্ছিল, যে স্থানীয় বাসিন্দাদের নাকি সমস্যা হচ্ছিল।

সম্প্রতি, মেয়ে শ্যাননকে দত্তক নেওয়ার কথা জানিয়ে খবরের শিরোনামে উঠে এসেছিলেন বলিউডের জনপ্রিয় এই গায়ক। ২০০১ সালে তিনি শ্যাননকে দত্তক নিয়েছিলেন বলে জানান। তবে পুরো বিষয়টিই তিনি গোপন রেখেছিলেন। তার কথায়, সমাজ কী ভাববে সেকথা ভেবেই তিনি পুরো বিষয়টি সকলের সামনে প্রকাশ্যে আনেননি। প্রসঙ্গত, কুমার শানুর মেয়ে শ্যাননও গায়িকা হিসাবে হলিউডে ধীরে ধীরে নিজের জায়গা করে নিচ্ছেন। ইংরেজি গানের জগতে তার যথেষ্ঠ সুনাম রয়েছ।

জনপ্রিয়তা দিয়েই এমপি হতে চাই : হিরো আলম

এক সময় মানুষ আমাকে চিনতো না। সেই সময়ই আমি মেম্বার নির্বাচন করেছি। এখন সারা দেশের মানুষ আমাকে চেনে, আমার কথা জানে, আমাকে ভালোবাসে। অনেকেই আমার কাছে জানতে চেয়েছে আমি নির্বাচন করবো কি না। আমি বলে এসেছি নির্বাচন করলে বড় নির্বাচনই করবো। তাই সামনে নির্বাচনে বগুড়া ৬ আসন থেকে এমপি নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের জনপ্রিয় মুখ ‘হিরো আলম’ এভাবেই প্রকাশ করলেন তার নির্বাচন করার ইচ্ছের কথা।

হিরো আলমের আসল নাম আশরাফুল হোসেন আলম। জানালেন আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনেই বগুড়া-৬ সদর আসন থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ভোটে অংশ নিতে যাচ্ছেন তিনি। হিরো আলম বলেন, ‘আমি নিজে গরিব, আমি গরিবের কষ্ট বুঝি। মানুষের উপকারে আসার চেষ্টা করি সব সময়। অসংখ্য মানুষের ভালোবাসা পেয়ে আমি আজকের হিরো আলম হয়েছি। কোন রাজনৈতিক দলের ছায়াতে না, নিজের জনপ্রিয়তা দিয়েই এমপি হতে চাই।’

তিনি আরও বলেন, ‘চেহারা দেখে মানুষের যোগ্যতার বিচার করা যায় না। প্রতিটি সফলতার ধাপে ধাপে থাকতে হয় প্রতিভা। আমার গর্ব আমি বগুড়ার সন্তান। তাই বগুড়া নিয়েই আমার স্বপ্ন বেশি। আমি এলাকার মানুষের সঙ্গে থাকতে চাই।’

বলিউডে ডাক পাওয়া প্রসঙ্গে বলেন, ‘বাংলাদেশের প্রথম অভিনেতা (নায়ক) হিসেবে আমি বলিউডে সুযোগ পেয়েছি। এখানে আমিই প্রথম। সত্যিই এটা স্বপ্নের মত। মিডিয়া আর জনগণের ভালোবাসায় আমার স্বপ্ন পূরণের পথে।’

এছাড়া প্রত্যন্ত অঞ্চলে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা প্রতিভাদের তুলে আনতেও সংশ্লিষ্টদের সুনজরদারি ও যথাযথ পদক্ষেপ আশা করেন হিরো আলম।

ট্রোলিংয়ের শিকার নেহা!

প্রথম সন্তানকে পৃথিবীতে নিয়ে আসার অপেক্ষায় দিন গুণছেন নেহা ধুপিয়া ও অঙ্গদ বেদি। কিছুদিন আগেই সেই খবর ফলাও করে সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ারও করেছিলেন তারা৷ সম্প্রতি মিস ডিভা ২০১৮-এর রেড কার্পেটে হাঁটতে দেখা গেল প্রেগন্যান্ট নেহাকে। লাল-কালো বডি হাগিং লং গাউন পরেছিলেন তিনি।  চাপা ড্রেস পরায় বেবি বাম্প বেশ স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছিল। আর সেই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট হতে শুরু হয়ে গেল ট্রোলিং।

গত ১০ মে গুরুদ্বারে গিয়ে অঙ্গদের সঙ্গে গোপনে বিয়ে পর্ব সেরেছিলেন নেহা। তখন থেকেই গুঞ্জন ছড়াচ্ছিল সম্ভবত অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার কারণেই চুপি চুপি বিয়ে করেছে নায়িকা। যদিও প্রথম দিকে সে কথা একেবারেই মেনে নিতে চাননি দম্পতি। পরে অবশ্য গুজবেই সিলমোহর পড়ে। জানা যায়, সত্যিই মা হতে চলেছেন নেহা ৷

তবে গর্ভবতী হলেও নিজের কাজ থেকে দূরে সরে যাননি হবু মা। বরং জানিয়েছিলেন, খুব স্বাভাবিকভাবেই মা হবেন তিনি, নিজের কাজের জায়গাকে আঘাত না করেই। সেই মতো যে কোনও অনুষ্ঠান থেকে ফ্যাশন উইকে র‍্যাম্প, আউটিং, ডেটিং, সেলিব্রেশন সবটাই হচ্ছে আগের মতোই।

কিছুদিন কয়েক আগে ল্যাকমে ফ্যাশন উইকেও স্বামী অঙ্গদের সঙ্গে র‍্যাম্প কাঁপাতে দেখা গিয়েছিল তাঁকে। এবারও পৌঁছে গিয়েছিলেন মিস ডিভায় অংশ নিতে। কিন্তু সেই ছবি সামনে আসতেই ব্যাক্তিগত আক্রমণ করা হল নেহাকে।

কেউ বিয়ের আগেই গর্ভবতী হওয়ার জন্য তীর্যক মন্তব্য করলেন। কেউ আবার এই বিশেষ সময় চাপা জামা পরায় সমালোচনা করলেন নায়িকার ৷ তবে নেটিজেনদের একটা বড়ো অংশ ছিল নেহার পক্ষে। নায়িকার পোশাক ও ব্যক্তিগত জীবনকে নিয়ে কাটাছেঁড়া করার বিরোধীতা করতে দেখা যায় তাদের।

ঐশ্বরিয়ার জন্য প্রিয়াঙ্কাকে অপমান!

‘যোধা আকবর’-এর জন্য সেরা অভিনেত্রীর মনোনয়ন পেয়েছিলেন ঐশ্বরিয়া। কিন্তু, ঐশ্বরিয়াকে পিছনে ফেলে সেবার সেরা অভিনেত্রীর শিরোপা জিতে নেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। সেরা অভিনেত্রী বিভাগে ‘ফ্যাশন’ এবং ‘দোস্তানা’-র জন্য মনোনয়ন পেয়েছিলেন পিগি। কিন্তু, ঐশ্বরিয়াকে পিছনে ফেলে প্রিয়াঙ্কা কীভাবে সেরা অভিনেত্রীর শিরোপা জিতলেন তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন পরিচালক আশুতোষ গোয়াড়িকর।

প্রিয়াঙ্কা সেরা অভিনেত্রীর পুরষ্কার নেওয়ার পর মঞ্চে ওঠেন পরিচালক আশুতোষ। পুরষ্কার নেওয়ার পর পরই তিনি বলেন, প্রিয়াঙ্কা সেরা অভিনেত্রীর পুরষ্কার জিতেছেন, এর জন্য তিনি খুশি। প্রিয়াঙ্কাকে ভালোবাসেন তিনি। কিন্তু, ঐশ্বরিয়া থাকতে প্রিয়াঙ্কা কীভাবে সেরা অভিনেত্রীর পুরষ্কার পেলেন, তা দেখে চমকে গিয়েছেন তিনি। শুধু তাই নয়, জয়া বচ্চনও নাকি তাঁকে এই একই প্রশ্ন তাঁকে করেন।

আশুতোষ গোয়াড়িকরের কথা শুনে সবাই যেন চমকে ওঠেন। পরে তিনি বলেন, প্রিয়াঙ্কার অক্লান্ত পরিশ্রমই তাঁকে সেরা অভিনেত্রীর শিরোপা এনে দিয়েছে।

যদিও ওইদিন আশুতোষ গোয়াড়িকরের মন্তব্যের কোনও উত্তর দেননি প্রিয়াঙ্কা। কিন্তু, ঘনিষ্ঠ মহলে তিনি নাকি সংশ্লিষ্ঠ পরিচালকের বিরুদ্ধে ক্ষোভ ঢেলে দেন। পাশাপাশি তিনি আরও বলেন, ঐশ্বরিয়া একটি সুন্দর মুখ রয়েছে। যার জন্য সবকিছু তাঁর জন্য খুব সহজ হয়ে যায়। আর প্রিয়াঙ্কার ওই কথা শোনার পর নাকি বিরক্তি প্রকাশ করেন রাই সুন্দরী। তবে এ বিষয়ে তিনি কখনও কোনও পাল্টা মন্তব্য করেননি।

খুনি চরিত্র, মেকআপ ছাড়া জয়া

এমন একটি চরিত্র নিয়ে কলকাতায় হাজির হচ্ছেন দুই বাংলার প্রশংসিত অভিনেত্রী জয়া আহসান। গত মে মাসে ছবিটির আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসে ওপার বাংলার নির্মাতা অর্ণব পালের পক্ষ থেকে। সাইকোলজিক্যাল থ্রিলার ধাঁচের এই ছবিটির নাম ‘বৃষ্টি তোমাকে দিলাম’।
সে সময়ই শহর কলকাতায় উপস্থিত হন দেবজ্যোতি মিশ্র, জয়া আহসান, চিরঞ্জিতসহ অনেকে। এরপর টানা কয়েক দিন চলেছে ছবিটির কাজ।
আর নিজ চরিত্রের কারণেই এতে জয়াকে একেবারে মেকআপহীনভাবে পাওয়া যাবে বলে জানা গেছে। ছবির অন্যতম চরিত্র বৃষ্টি, এই চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি।
জয়া বললেন, ‌‘‘স্প্লিট পারসোনালিটি ডিসঅর্ডার’-এর রোগী। ডাক্তারের পরামর্শে বাইরে বেড়াতে গিয়ে এক দুর্ঘটনায় জড়িয়ে যায়, যা নিয়ে পুলিশ-আদালত পর্যন্ত যেতে হয়। জেলেও তাকে অনেক দিন ধরে জেরা করা হয়। আর এ কারণে ছবির অনেক দৃশ্যে আমাকে একেবারে মেকআপ ছাড়া পাওয়া যাবে। আবার এতে গ্ল্যামারাস দৃশ্যেও থাকছি।’’
ছবিটির অন্যতম চরিত্রে অভিনয় করেছেন বলিউড অভিনেতা সুব্রত সাহা। তিনি আছেন পুলিশের তদন্ত কর্মকর্তা হিসেবে।
নারীকেন্দ্রিক এই ছবিতে জয়া আহসানের পাশাপাশি আরও অভিনয় করছেন চিরঞ্জিত চক্রবর্তী, সুব্রত দত্ত, রজতাভ দত্ত, বাদশা মৈত্র, রাজেশ শর্মা, সঞ্জীব সরকার, নিমাই ঘোষ, সোনালি চট্টোপাধ্যায়, তনুশ্রী চট্টোপাধ্যায় প্রমুখ। ছবির গানের সুর ও সংগীত পরিচালনা করেছেন দেবজ্যোতি মিশ্র ও রকেট মণ্ডল।

নেট দুনিয়ায় ঝড় তুলেছেন দিশা!

এমএস ধোনি: আনটোল্ড স্টোরি’ সিনেমায় মিষ্টি মেয়ের চরিত্রে অভিনয় করে নজড় কাড়েন দিশা পাটানি। আর এর পর থেকেই ক্যারিয়ারের তুঙ্গে রয়েছেন এ অভিনেত্রী। চমক দেখিয়েছেন বাগি-২ ছবিতেও। তার হাসি, চোখের চাউনিতে বহু পুরুষ হৃদয়ে ঝড় উঠে। এবার ফের ঝড় তুলেছেন নেট দুনিয়ায়।

কিছুদিন আগেই বিকিনি বেশে দিশাকে দেখা গিয়েছে সমুদ্র সৈকতে। আর সমুদ্রের সামনে দিশার এমন রূপে মাতোয়ারা গোটা ইন্টারনেট। স্বল্পবসনা এই নায়িকাকে ঘিরে আপাতত চড়ছে জনপ্রিয়তার পারদ। ছবিটিতে লাইক পড়েছে প্রায় ১৭ লাখ। আর কমেন্ট প্রায় ২০ হাজার।

কিছুদিন আগেই দিল্লিতে ল্যাকমে ফ্যাশন উইক-এ দিশাকে দেখা যায়, কালো পোশাকে। তার সঙ্গে মেক আপে ছিল মানানসই স্মোকি টাচ। সবমিলিয়ে দিশা ছিলেন সেই শো-য়ের অন্যতম আকর্ষণ।

সম্প্রতি বলিউডের গ্রিক দেবতা খ্যাত হৃতিক রোশন দিশার রুপে মাতোয়ারা হয়ে গিয়েছিলেন। যশরাজ ফিল্মসের প্রযোজনায় একটি অ্যাকশন ফিল্মে হৃতিকের পাশাপাশি অভিনয় করছিলেন দিশাও। কিন্তু হৃতিক অত্যধিক ফ্ল্যার্ট করছিলেন দিশার সঙ্গে। ফলে হৃতিকের ওপর বিরক্ত হয়ে ছবিটি ছেড়ে দেন দিশা।

আপাতত দিশা ব্যস্ত তাঁর ‘ভারত’ ছবিটি নিয়ে। ক্যাটরিনা কাইফ ও সালমান অভিনীত এই ছবির গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে রয়েছেন দিশা। ছবিটি আগামী বছরের ইদে মুক্তি পেতে চলেছে। আলি আব্বাস জাফর অভিনীত এই ছবিতে অভিনয়ের কথা ছিল প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার। তবে শেষ মুহূর্তে প্রিয়াঙ্কা নিজেরে সরিয়ে নেওয়ায় ছবিতে অভিনয় করছেন ক্যাটরিনা।

প্রকাশ হল দেবী’র গান

অভিনেত্রী জয়া আহসান এখন বাংলাদেশের চেয়ে বেশি সময় কলকাতায় থাকেন। টালিউড সিনেমা ইন্ডাস্ট্রিতে নিজের আসনটি বেশ পাকা করে নিয়েছেন। একের পর এক অভিনয় করছেন টালিউডের নতুন সিনেমায়। কিছুদিন আগেই ভারতে মুক্তি পেয়েছে জয়া অভিনীত সিনেমা ‘ক্রিসক্রস’।

এদিকে ঈদের ছুটিতে ঢাকায় ফিরেছেন জয়া আহসান। তার আগে কলকাতায় শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় ও নন্দিতা রায় পরিচালিত ‘কণ্ঠ’ ছবির ডাবিংয়ের কাজ শেষ করেছেন তিনি।

এবার ঈদে বেশ ছুটির আমেজে আছেন জয়া। ঈদে অন্য কোনো কাজ না থাকলেও নিজের দেবী ছবির প্রচারে কিছুটা ব্যস্ত থাকবেন বলে জানা যায়।

এই খবর তো অনেকেই জানেন, এবার প্রযোজক হিসেবে জয়া আহসান সিনেমা হলে আত্মপ্রকাশ করছেন। হুমায়ূন আহমেদের উপন্যাস থেকে জয়ার প্রযোজনায় ‘দেবী’ সিনেমাটি নির্মাণ করেছেন অনম বিশ্বাস। আগামী সেপ্টেম্বরে ছবিটি সিনেমা হলে দেখা যাবে।

এবারের ঈদ উপলক্ষে আজ মুক্তি দেয়া হয়েছে ছবিটির একটি নতুন গান। জয়া আহসান বলেন, কিছুদিন আগেই ‘দেবী’ সিনেমার টিজার মুক্তি দেয়া হয়েছে। সবাই সেটি পছন্দ করেছেন। এজন্য আমরা ভীষণ কৃতজ্ঞ সবার কাছে। এবার প্রকাশ করা হয়েছে দেবী সিনেমার গান। এই গানটি গেয়েছেন মমতাজ আপা।

হুমায়ূন আহমেদের বিখ্যাত মিসির আলী সিরিজের উপন্যাস ‘দেবী’র উপর ভিত্তি করেই তৈরি হয়েছে এই ছবিটি। পরিচালনা করছেন অনম বিশ্বাস। প্রযোজনা করেছেন জয়া আহসানের প্রযোজনা সংস্থা ‘সি-তে সিনেমা’।

এই ছবিতে মিসির আলীর ভূমিকায় দেখা যাবে চঞ্চল চৌধুরীকে। আর রানুর ভূমিকায় অভিনয় করেছেন জয়া।

আগামী ৭ সেপ্টেম্বর মুক্তি পেতে যাচ্ছে ছবিটি। এর আগে গত এপ্রিল মাসে মুক্তি পায় ‘দেবী’ ছবির প্রথম পোস্টার। ১৫ এপ্রিল মুক্তি পায় ছবির টিজার।

আগামীকাল বিশেষ নাটক ‘অর্কিডের স্বপ্ন’

 আগামীকাল সোমবার ঈদের ষষ্ঠদিন গাজী টিভির ঈদ অনুষ্ঠান মালায় রাত ৯টা ৩০ মিনিটে দেখা যাবে উপন্যাসের চেনা চরিত্র নিয়ে ‘সাহিত্যে প্রেমের গল্প’ শিরোনামের ভিন্নধর্মী আয়োজনের অংশে বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘ক্যামেলিয়া’ কবিতার ছায়া অবলম্বনে নাটক ‘অর্কিডের স্বপ্ন’। নাটকটি নাট্যরূপ দিয়েছেন নাজনীন হাসান চুমকী এবং পরিচালনা করেছেন দীপু হাজরা। নাটকটিতে বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন আনিসুর রহমান মিলন, গোলাম ফরিদা ছন্দা, আমীন আজাদ, সুজাত শিমুল, আসিফ নজরুল, তাবাস্সুম মিথিলা, সুজিত বিশ্বাস , ইমতিয়াজ মেহেদী হাসান প্রমুখ।

গল্পে দেখা যায়, জিসান দেখতে সুদর্শন, কিন্তু স্বল্পশিক্ষিত। কারণ, ক্ষমতা। অতি অল্প বয়স থেকে এলাকায় এটা ওটা নিয়ে কোন্দল করতে করতে এখন জিসান ডাকসাইটে মাস্তান। এখন তার আ-ারে কাজ করে ছেলেরা। এসব করতে গিয়েই আর পড়াশোনা হয়নি জিসানের। সেই পাষাণ হৃদয়ের জিসান, ক্যামিলিয়া নামের এই মেয়েটিকে দেখে মুগ্ধ হয়ে বাসা পর্যন্ত যায় গাড়ির পিছে পিছে। খেয়ালী ক্যামিলিয়া বিষয়টি খেয়াল করে। শুধু ঐদিনই নয় প্রায় প্রতিদিনই জিসান ক্যামিলিয়ার আশে পাশে থাকার চেষ্টা করে।

বন্ধ হলো ভারতীয় বাংলা চ্যানেলের সিরিয়াল

ভারতের বাংলা চ্যানেলের সিরিয়ালের শিল্পীদের ধর্মঘটে দারুণ দুশ্চিন্তায় পড়েছেন দর্শক-ভক্তরা। স্টুডিওগুলো ফাঁকা আছে। কোনো শুটিং হচ্ছে না। সিরিয়ালপ্রেমীরা তাই অতি জনপ্রিয় সিরিয়ালগুলো উপভোগ করতে পারছেন না। বিনোদনের বড় একটি অংশ হঠাৎ করেই যেন হারিয়ে গেছে।

জানা গেছে, এবার টিভি সিরিয়াল নিয়ে তৈরি অচলাবস্থা নিরসনে এবার সরাসরি হস্তক্ষেপ করতে যাচ্ছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সিরিয়াল সংশ্লিষ্ট সব পক্ষকে নিয়ে নবান্নে আলোচনাতেও বসেছিলেন তিনি।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় টালিগঞ্জের টেকনিশিয়ান্স স্টুডিওতে সংস্কৃতি দপ্তরের বৈঠকের কথা ছিল। কিন্তু তা আর হয়নি। এখন সমস্যা নিরসনে মমতার দিকে তাকিয়ে আছে সব পক্ষই।

ওভারটাইম করে প্রাপ্য টাকা না পাওয়া, বেতন নিয়ে জটিলতা ইত্যাদি বিষয়ে চলছে এই অচলাবস্থা। এসব সমস্যা নিয়ে প্রযোজকদের সঙ্গে শিল্পীদের মধ্যে বেশ কিছুদিন ধরে ঝামেলা চলছে। শিল্পীরা নানা দাবি তুলেছেন। একনজরে জেনে নেয়া যাক তাদের দাবিগুলো-
এক নজরে কলাকুশলীদের দাবি–

১. প্রতি মাসের ১৫ তারিখের মধ্যে বেতন
২. বকেয়া বেতন দিয়ে দিতে হবে
৩. শিল্পীরা সর্বোচ্চ ১০ ঘণ্টা কাজ করবেন
৪. দশ ঘণ্টার বেশি কাজ করলে ঘণ্টাপ্রতি টাকা
৫. তিরিশ জুন পর্যন্ত বকেয়া টাকা মেটাতে হবে

এ অবস্থার প্রেক্ষিতে গত শনিবার থেকে সব সিরিয়ালের শুটিং বন্ধ আছে। সিরিয়ালগুলোর কোনো নতুন পর্ব প্রচারিত হচ্ছে না। টিভি সিরিয়ালের স্লটেই পুরনো পর্বের রিপিট চলছে। আবার টিভি সিরিয়াল চলা, না-চলার সঙ্গে জড়িয়ে বহু কলাকুশলীর জীবিকা। এমন অবস্থায় মুখ্যমন্ত্রী হস্তক্ষেপ করতে চলেছেন বলে মনে করা হচ্ছে।

বৈঠকের মাধ্যমে কোনো মীমাংসা না হলে সরকার কঠোর পদক্ষেপ নেবে বলেও জানা গেছে।
সূত্র: আনন্দবাজার

ঈদুল আযহায়ও গান শোনাবেন মাহফুজুর রহমান

দর্শকদের সঙ্গে আনন্দ ভাগাভাগি করে নিতে ১০টি গান নিয়ে হাজির হচ্ছেন ড. মাহফুজুর রহমান। ঈদের তৃতীয় দিন রাত ১০টা ৩০ মিনিটে এটিএন বাংলায় প্রচারিত হবে তার একক সংগীতানুষ্ঠান ‘বলো না তুমি কার’।

অনুষ্ঠানের গানগুলো হল- একটা মন দাও, কত সুন্দর তুমি, স্মৃতি নিয়ে বেঁচে আছি, শুধু তোমাকেই, আমার চেয়ে অনেক বেশি, আজ কেন মনে হয়, আমাকে আর ভালোবাস না, একা থাকার যন্ত্রণা, মনের দুয়ার ও তোমার এক ফোঁটা চোখের পানি। এসব গানের শুটিং হয়েছে দেশ-বিদেশের বিভিন্ন জায়গায়।

গানগুলোর কথা লিখেছেন নাজমা মোহাম্মদ, রাজেশ ঘোষ ও কৌশিক হোসেন তাপস। সুর ও সংগীত পরিচালনা আছেন মান্নান মোহাম্মদ, রাজেশ ঘোষ ও কৌশিক হোসেন তাপস।

ইসলাম ধর্ম গ্রহণের পর থেকেই কোরবানি দেই

ঢালিউড কুইন অপু বিশ্বাস। ধর্মান্তরিত হয়ে শাকিব খানকে বিয়ে করেছিলেন তিনি। নাম পরিবর্তন করে নিজের নাম রেখেছেন অপু ইসলাম খান। এই দম্পতির ঘরে একটি পুত্র সন্তান রয়েছে। তার নাম আব্রাম খান জয়।

আলোচিত জুটি শাকিব খান ও অপুর বিশ্বাসের ডিভোর্স হয়েছে। তবে এর কারণে আবারও ধর্মান্তরিত হননি অপু। বর্তমানে ইসলাম ধর্ম অনুসারেই জীবন-যাপন করছেন জনপ্রিয় এই অভিনেত্রী। তাই চিত্রনায়িকা অপুর জীবনযাপন ও ধর্মচর্চা নিয়ে তার ভক্তদের আগ্রহ অনেক। অনেকেই জানতে চান, অপু বিশ্বাস কী পশু কোরবানি করেন?

শাকিব খান থেকে আলাদা হওয়ার পরও কি কোরবানি দেবেন এই নায়িকা। এই বিষয়ে অপু নিজের অবস্থান পরিষ্কার করলেন।

অপু বিশ্বাস বলেন, ‘হ্যাঁ, এবার আমার ছেলে জয়ের নামে তিনটি খাসি কোরবানি দেব। এটি আমার ছেলের নামে দ্বিতীয় কোরবানি। ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করার পর থেকেই আমি নিয়মিত কোরবানি দিয়েছি। আল্লাহ যেহেতু আমার কোরবানি দেওয়ার মতো সামর্থ দিয়েছে তাই প্রতিবছর আমি কোরবানি দেই’।

তবে এবার কোরবানি দিলেও কিছুটা মন খারাপ অপু বিশ্বাসের। কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ‘ঈদের দিন আমি দেশে থাকব না। আগামীকাল সোমবার ২০ আগস্ট আমি বাহরাইন যাব। সেখানে ঈদের দিন একটি অনুষ্ঠানে অংশ নেব। এরপর ঈদের পরের দিন দেশে ফিরব। ঈদের দিন ঢাকায় একটি খাসি কোরবানি দেওয়া হবে। বাকি দুটি খাসি ঈদের পরের দিন আমি এসে কোরবানি দেব’।

অপু বিশ্বাস আরও বলেন, ‘জয়কে ঘিরেই আমার সব আনন্দ। জয়কে একজন আদর্শ মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। সবাই জয়ের জন্য দোয়া করবেন’।

নায়করাজ রাজ্জাক এর চলে যাবার এক বছর

বলিউডে দিলীপ কুমার, টলিউডে উত্তম কুমার চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি আর গর্ব। আমাদের আছে চলচ্চিত্রের অবিসংবাদিত রাজা নায়করাজ রাজ্জাক। টানা পাঁচ দশক দক্ষ কর্মযজ্ঞ দিয়ে দেশীয় চলচ্চিত্রের ভাণ্ডারকে পূর্ণতা দিয়েছেন তিনি। পেয়েছেন মানুষের অফুরন্ত ভালোবাসা।

রাষ্ট্রও তাকে দিয়েছে কাজের স্বীকৃতি ও যথাযথ সম্মান। চলচ্চিত্রের এই মহান রাজা পেয়ে গেছেন একাধিকবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার, জাতীয় পুরস্কারে আজীবন সম্মাননা এবং রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মান স্বাধীনতা পদক।

গত বছরের ২১ আগস্ট কোটি ভক্তকে চোখের জলে ভাসিয়ে পরপারে চলে গেছেন চলচ্চিত্রের এই রাজাধিরাজ। বেদনা নিয়ে আজ তার মহাপ্রয়াণের এক বছর পূর্ণ হলো। তার স্মৃতির প্রতি রইল বিনম্র শ্রদ্ধা।

১৯৪২ সালের ২৩ জানুয়ারি কলকাতায় জন্ম নেওয়া আবদুর রাজ্জাক স্কুল জীবনেই অভিনয়ের সঙ্গে যুক্ত হন। ১৯৬৪ সালে কলকাতায় সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা শুরু হলে স্ত্রী খায়রুন নেসা লক্ষ্মী আর তিন মাস বয়সের পুত্র বাপ্পারাজকে নিয়ে একজন শরণার্থী হিসেবে ঢাকায় আসেন রাজ্জাক। শুরু হয় তার জীবনযুদ্ধ। আর এই যুদ্ধে জয়ী হতে চলচ্চিত্রকেই বেছে নেন তিনি। কাজের প্রতি আন্তরিকতা আর মমত্ববোধ সহজেই তাকে সহকারী পরিচালক আর সহশিল্পী থেকে রাজার আসনে বসিয়ে দেয়।

১৯৬৮ সালে নায়ক হিসেবে তার প্রথম ছবি জহির রায়হান নির্মিত ‘বেহুলা’ মুক্তি পায়। তার অভিনয় কুশলতায় চারদিকে তখন সাজ সাজ রব। পাঁচ দশক ধরে নিরবছিন্নভাবে একচ্ছত্র আধিপত্য নিয়ে চলচ্চিত্রে পথচলা নায়করাজের। ‘বেহুলা’ ছবিতে তার বিপরীতে নাম ভূমিকায় অভিনয় করেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী সুচন্দা।

সুচন্দা বলেন, ‘কাজের প্রতি নিষ্ঠা একজন সাধারণ মানুষকে যে অসাধারণ করে তুলতে পারে তার প্রমাণ রাজ্জাক। তিনি যথার্থ চলচ্চিত্রের রাজা। পৃথিবীতে নায়করাজ একজনই হয়েছেন, দ্বিতীয় কেউ আর হতে পারবে না।’ চলচ্চিত্রের রাজা হয়েও নায়করাজের মধ্যে অহংবোধ ছিল না। অহংকারকে তিনি কখনো পছন্দ করতেন না।

নায়করাজের কথায় প্রতিষ্ঠা আর ভালোবাসা পেতে হলে বিনয়ী হতে হয়। সত্যিই তিনি অসাধারণ একজন বিনয়ী মানুষ ছিলেন। তার কথাবার্তা আর আচার-আচরণে সদা এই বিনয়ী ভাব ফুটে উঠত। কাউকে কষ্ট দিয়ে তিনি কথা বলেছেন এমন কথা কখনো শোনা যায়নি। প্রয়াণের আগে মিডিয়াকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তার মহানুভবতার কথাই আবার ফুটে উঠেছিল।

সাক্ষাৎকারে নায়করাজ বলেছিলেন, এই জীবনে আমার আর চাওয়া-পাওয়ার কিছুই নেই, সৃষ্টিকর্তা আমাকে সম্মান, ভালোবাসা এবং সুন্দর একটি সংসার দিয়েছেন। আমার জীবন সুখের পূর্ণতায় ভরা। এখন সৃষ্টিকর্তা প্রদত্ত সম্মান নিয়ে তার কাছে ফিরে যেতে পারলেই এ জীবন সার্থক হবে।

তিনি বলেছিলেন, আমি জীবনটাকে সহজভাবেই উপভোগ করি। আমি মানুষ রাজ্জাক, এটাই আমার বড় পরিচয়। যখন অভিনয় করি তখন শিল্পী। এর বাইরে সাধারণ মানুষ। আমি কখনো কারও সঙ্গে অহংকার দেখাইনি। একটি বাঙালি পরিবারে জন্মগ্রহণ করেছি।

নিজের বৈচিত্র্যপূর্ণ জীবন সম্পর্কে নায়করাজের কথা ছিল-জীবনে সফলতার জন্য অনেক ধৈর্য আর ত্যাগের দরকার। কেউ যখন কোনো একটা অবস্থানে চলে যায়, তখন নিজেকে মানিয়ে চলতে খুব কম মানুষই পারে। সৃষ্টিকর্তা আমাকে সহযোগিতা করেছেন।

ব্যক্তিগত ভালোবাসা ও প্রচণ্ড ইচ্ছাশক্তির কারণেই চলচ্চিত্রে এসেছিলাম। প্রতিষ্ঠাও পেয়েছি। আমি মনে করি, ব্যক্তি রাজ্জাক একবারেই সাধারণ। আর শিল্পী রাজ্জাক মানে দায়িত্ব ও কর্তব্যবোধের পাত্র। যারা সময়টাকে জয় করতে পারে, তারা জীবনে অনেক কিছুই করতে পারে। আমার স্বপ্ন ছিল, যে করেই হোক আমাকে শিল্পী হতে হবে। তার জন্য যতটুকু ত্যাগ স্বীকার করতে হয়, তা আমি করব। এ ক্ষেত্রে সৃষ্টিকর্তা ও দর্শক আমাকে সহযোগিতা করেছেন। যে কোনো মানুষের জীবনে একটা স্বপ্ন থাকতে হয়।

আমি কী হতে চাই? দোটানা থাকা যাবে না, আত্মপ্রত্যয়ী হতে হবে। অবশ্যই সেটা বাস্তবতার আলোকে হতে হবে। নিজের অবসর জীবন সম্পর্কে নায়করাজ বলেছিলেন, একটা সময় ‘দিন-রাত’, এই শব্দ দুটো জীবন থেকে মুছে ফেলেছিলাম। সেই সময়গুলোকে এখন খুব মনে পড়ে। অভিনয়ে ব্যস্ত না থাকার যন্ত্রণাটা যে কি, সেটি শুধু একজন শিল্পীই অনুধাবণ করতে পারে। এখন বয়স হয়েছে।

তারপরও মন চায় অভিনয়ে আগের মতো ব্যস্ত থাকতে। কিন্তু শরীর তো সায় দেন না। জীবনের গতিতে জীবন চলে যাচ্ছে। জীবন তো অনেক সুন্দর। মৃত্যুকে নিয়ে চলচ্চিত্রের এই শক্তিমান রাজার সাহসী জবাব ছিল— ‘এখন কী আর মৃত্যুকে ভয় করার সময় আছে। সৃষ্টিকর্তার কাছে তো একদিন ফিরে যেতেই হয়। এটিই পৃথিবীর অমোঘ নিয়ম।

১০ পর্বের ধারাবাহিক ‘অতি ভক্তি চোরের লক্ষন’

এটিএন বাংলার ঈদ অনুষ্ঠানমালায় প্রচার হবে ১০ পর্বের ধারাবাহিক নাটক ‘অতি ভক্তি চোরের লক্ষন’। ঈদের দিন থেকে দশম দিন পর্যন্ত রাত ৯.৩০ মিনিটে প্রচার হবে নাটকটি। আকাশ রঞ্জনের রচনা ও পরিচালনায় নির্মিত নাটকটিতে অভিনয় করেছেন এটিএম শামসুজ্জামান, সাজু খাদেম, মীশু সাব্বির, আমিরুল হক চৌধুরী, নাদিয়া আহমেদ, অর্ষা, নওশীন, সাঈদ বাবু, চিত্রলেখা গুহ, অলিউল হক রুমী, জামাল রাজা প্রমুখ।
অর্থ বিত্তের পরে একজন মানুষ মন থেকে যেটা খুব করে চায় সেটা হচ্ছে ভক্তি, শ্রদ্ধা, সম্মান। এই ভক্তিকে উপজীব্য করে একশ্রেণীর লোক নিজেদের স্বার্থহাসিল করার জন্য মরিয়া হয়ে উঠে শুরু করে দেয় অতি ভক্তি। এই অতিভক্তিতে যারা তৃপ্ত হয়েছে তারাই ভবিষ্যতে নানামুখী বিপদের সম্মুখীন হয়েছেন। এমনই তাৎপর্যপূর্ন ঘটনাপ্রবাহ নিয়ে অতিভক্তি চোরের লক্ষন নাটকের কাহিনী আবর্তিত হবে।

আজগর আলী গ্রামের প্রভাবশালী শিক্ষিত একজন ব্যক্তি। তার কথা অমান্য করার কারো সাহস নাই। তবে এই আজগর আলী গ্রামের সবার কাছে তার মরহুম পিতার মতো প্রিয় আজগর ভাই হিসাবে পরিচিত। আজগর আলীও তার বাবার নাম যশ খ্যাতি ধরে রাখার জন্য কোন অন্যায়ের সাথে আপোষ করে না। এই বিষয়টা আজগর আলীর একান্ত সহকারী মোসলেমের মোটেও পছন্দ না। তাই সে আজগর আলীর প্রতি ভক্তির মাত্রা বাড়িয়ে দিয়ে আজগর আলীর অজান্তেই তার প্রিয় পাত্র হয়ে উঠে। মোসলেম প্রিয় পাত্র হওয়ার পর পরই আজগর আলীর কাছে গ্রামের অধিকাংশ লোককে অপ্রিয় বানিয়ে ফেলে। আজগর মোসলেমের অতিভক্তিতে হীতাহিত জ্ঞান হারিয়ে ফেলে মুহুর্তের মধ্যে খুব কাছের লোকগুলোকে দূরের লোক বানিয়ে ফেলে।

অপরদিকে, কদম আলী অর্থবিত্তশালী মূর্খ একজন লোক। গ্রামের যুবক শ্রেণী তাকে বেশী ভক্তি করে এর একমাত্র কারন তার সুন্দরী মেয়ে টুম্পা। কদম আলী বিষয়টা বুঝতে না পারলেও তার ভাগ্নে বারেক বিষয়টা বুঝেও না বোঝার ভান করে কদমকে নির্বাচন ও সামাজিক কিছু অনুষ্ঠানে অর্থের বিনিময়ে অতিথি বানানোর পায়তারা করেন। কারন একটাই অতি ভক্তির আড়ালে কিছু অর্থ উপার্জন। বারেকের বিষয়টা বোঝা গেলেও মাষ্টার জালালের ছেলে আতিকের বিষয়টা বোঝা যাচ্ছে কোন স্বার্থে সে তার প্রেমিকা লাইজুর চেয়ারম্যান ভাইকে ভক্তি না করে কদম আলীকে ভক্তি করছে ??
এভাবে নানান রহস্যজনক ঘটনা প্রবাহ নিয়ে রসাত্মক আঙ্গিকে এগিয়ে যাবে গল্পটি। দর্শক বুঝতে পারবে একজন মানুষকে জীবিত অবস্থায় মৃত বানাতে অতিভক্তিই যথেষ্ট। জীবিত মৃতর চেয়ে মরে যাওয়া অনেক ভালো।