কুষ্টিয়ায় ঐতিহ্যবাহী ১৭ হাত কালী পূজার ৫ দিন ব্যাপী অনুষ্ঠানের সমাপনী

কুষ্টিয়ায় ৫দিন ব্যাপী ৩৯তম ঐতিহ্যবাহী ১৭ হাঁত উচ্চতা বিশিষ্ট কালী পূজার সমাপনী অনুষ্ঠান সোমবার সন্ধ্যায় সমাপনী দিনে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়া শহর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান আতা। তিনি ১৭ হাঁত উচ্চতা বিশিষ্ট কালী পূজা মন্দিরের উন্নয়নে সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে শহর আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান আতা বলেন বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রতির দেশ। যুগ যুগ ধরে এদেশে সকল ধর্মের মানুষ শান্তিতে বসবাস করে আসছে। আমরা শান্তিতে বিশ্বাস করি। আসুন দেশের উন্নয়নে জাতি-ভেদ ভুলে সকলে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করি। হিংসা-বিদ্বেষ ভুলে উন্নয়নের কাজ করি। নতুন প্রজন্মকে দেশ প্রেমে জাগ্রত করি।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ১৭ হাত উচ্চতা বিশিষ্ট কালী পূজা কমিটির সভাপতি এ্যাডঃ অঘোর কুমার সরকার। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়া শহর আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মানজিয়ার রহমান চঞ্চল, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মীর রেজাউল ইসলাম বাবু, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আমিনুর রহিম পল্লব, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ৪নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ডাঃ আফিল উদ্দিন, ৩নং ওয়ার্ড আ’লীগ নেতা হাবিবুর রহমান হাবু, শহর যুবলীগের সদস্য মেহেদী হাসান বাবুল।

অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, ১৭ হাত উচ্চতা বিশিষ্ট কালী পূজা কমিটির সাধারণ সম্পাদক সুজিত ঘোষ। কোষাধ্যক্ষ সহদেব অধিকারী সাধু পপ্রমুখ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন ১৭ হাঁত উচ্চতা বিশিষ্ট কালী পূজা মন্দির কমিটির সহ-সভাপতি সাংবাদিক সুজন কুমার কর্মকার।

এর আগে অতিথিদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেন ও স্বাগত জানান ১৭ হাঁত উচ্চতা বিশিষ্ট কালী পূজা মন্দির কমিটির সহ-সভাপতি সনৎ পাল বাবলু, সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা নিশিত রঞ্জন, সহ-সভাপতি অনীল ভদ্র, যুগ্ম-সম্পাদক বরুণ বিশ্বাস, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক নিমাই অধিকারী, সহ-কোষাধ্যক্ষ পাভেল পাল, পূজা সম্পাদক নরেশ ঘোষ, সহ-দপ্তর সম্পাদক সুপ্ল¬ব কুমার ঘোষ, সহ-প্রচার সম্পাদক বিপুল অধিকারী, সহ-সাংস্কৃতিক সম্পাদক প্রতাপ শর্মা, চারুকারু সম্পাদক তুষার পাল, অঙ্কুর প্রমুখ।

পরে রাতে ৩৯তম ঐতিহ্যবাহী শ্রী শ্রী ১৭ হাঁত উচ্চতা বিশিষ্ট কালী মায়ের বিসর্জন অনুষ্ঠিত হয়। শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ৫দিন ব্যাপী ১৭ হাঁত উচ্চতা বিশিষ্ট কালী পূজার আয়োজন সমাপ্তি হওয়ায়, মন্দির কমিটির পক্ষ থেকে জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, পৌরসভা, ফায়ার সার্ভিস, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দসহ সকলকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

মন্তব্য