ভারত থেকে আরো ৩ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানি করা হবে;প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

ভারত থেকে পর্যায়ক্রমে আরো তিন হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানি করা হবে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, সহযোগিতার এই দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কে উপকৃত হচ্ছে দু'দেশের জনগণ। বিকেলে, গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্স এর মাধ্যমে ভারত থেকে ৫০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানি কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে একথা বলেন তিনি। এ সময়, ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেছেন,আন্তঃদেশীয় বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইন দু'দেশের সম্পর্কের সোনালি প্রতীক হয়ে রয়েছে। রেল-বিদ্যুৎসহ পারস্পরিক বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক আরো দৃঢ় হলো বলেও জানান নরেন্দ্র মোদী।

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে সহযোগিতা বৃদ্ধির অংশ হিসেবে প্রথমবারের মতো ২০১৩ সালের ৫ অক্টোবর থেকে আন্তঃদেশীয় গ্রিড সঞ্চালন লাইনের মাধ্যমে পশ্চিমবঙ্গের বহরমপুর থেকে কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা হয়ে ৫০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ যোগ হতে শুরু করে বাংলাদেশের জাতীয় গ্রিডে। তিন বছর পর ২০১৬-তে ত্রিপুরা থেকে কুমিল্লা হয়ে ১৬০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আসার পর এবার নতুন করে আরো ৫০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানি শুরু হলো দেশে। পাশাপাশি, কুলাউড়া-শাহবাজপুর রেললাইন ও আখাউড়া-আগরতলা অংশের নির্মাণ কাজেরও উদ্বোধন ঘোষণা করা হয়।

সোমবার বিকেলে গণভবনে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এই কার্যক্রমের উদ্বোধনীতে অনলাইনে যোগ দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জিসহ ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব। উদ্বোধনী আয়োজনে মমতা ব্যানার্জি আরো ১০০০ মে. ও. বিদ্যুৎ রপ্তানির প্রতিশ্রুতি দিয়ে বলেন- বাংলাদেশ ভালো থাকলেই ভালো থাকে পুরো ভারত।

মমতা ব্যানার্জি বলেন, 'গতবার যখন হাসিনা যে এসেছিলেন, যদি তারা বিদ্যুৎ চাল তখন বাংলা আরো বিদ্যুৎ দিতে রাজি আছে। বাংলাদেশ ভাল থাকলে আমরা ভাল থাকি, আমরা ভাল থাকলে বাংলাদেশ ভাল থাকে।

অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন- বিদ্যুৎ ও রেল সংযোগের মতো বিষয়গুলো সোনালি সম্পর্কের প্রতীক দু'দেশের পারস্পরিক সম্পর্কে। এ সময়, শেখ হাসিনা বলেন- আগামীতে দু'দেশের সুসম্পর্কের ধারাবাহিকতায় আরো নতুন নতুন মাইলফলক রচিত হবে। জানান দীর্ঘমেয়াদী ভারত থেকে আমদানি করা হবে আরো ৩ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, 'বর্তমানে ভারত থেকে আমরা ৬৬০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানি করছি। ভারত থেকে আরো ৩ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানির উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। ভারতের সহযোগিতামূলক এমন বিভিন্ন পদক্ষেপের ফলে, দেশটির সরকার, ভারতবাসী ও সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধন্যবাদ জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ভেড়ামারা বিদ্যুৎ কেন্দ্র উদ্ধোদনের সময় উপস্থিত ছিলেন, মাননীয় তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু এমপি। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক মাহাবুব-উল-আলম হানিফ এমপি। কু্ষ্টিয়া জেলা প্রশাসক আসলাম হোসেন। জেলা সিনিয়র তথ্য অফিসার তহিদুজ্জামান। জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হাজী রবিউল ইসলাম। জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব সদর উদ্দিন খান, সাধারন সম্পাদক বীরমুক্তিযোদ্ধা আজগর আলী, জেলা আ:লীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক প্রকৌশলী ফারুক-উজ-জামান, সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ হাসান মেহেদী, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক আমজাদ হোসেন রাজু, কেন্দ্রীয় জাসদের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আলীম স্বপন। কু্ষ্টিয়া শহর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আতাউর রহমান আতা। ভেড়ামারা মেয়র শামিমুল ইসলাম ছানা, জেলা জাসদের সভাপতি গোলাম মহসীন। ভেড়ামারা মিরপুর সার্কেল নুর-ই-আলম সিদ্দিকী সহ রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ।

মন্তব্য